ঢাকায় আরও চারটি পাসপোর্ট কার্যালয়

551
রোজিনা ইসলাম | আপডেট: ০১:৫৫, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৬ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাসপোর্ট করা নিয়ে বিড়ম্বনা আর থাকছে না। এখন ভিড় এড়িয়ে খুব সহজেই পাসপোর্ট করা যাবে। যেমন, সরকারি কর্মকর্তারা সচিবালয়ে বসেই পাসপোর্ট করতে পারবেন। আবার সশস্ত্র বাহিনী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা ঢাকা সেনানিবাসে বসেই পাসপোর্ট করতে পারবেন। একইভাবে ঢাকার পশ্চিম অঞ্চলের জনগণ আমিন বাজারে এবং ঢাকার পূর্বাঞ্চলের বাসিন্দারা গুলশান কার্যালয় থেকে পাসপোর্ট পাবেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল গতকাল মঙ্গলবার নতুন চারটি পাসপোর্ট কার্যালয়ের অনুমোদন দিয়েছেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যে এসব কার্যালয় চালু হবে।
জানতে চাইলে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাসুদ রেজওয়ান প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রতিদিন আগারগাঁও পাসপোর্ট কার্যালয়ে ৮-১০ হাজার লোকের আনাগোনা হয়। এত লোকের জন্য জায়গা সেখানে নেই। এ ছাড়া একটি কার্যালয়ে এত লোক ভিড় করার কারণে কাজের গতিও কমে যায়। তাই আমরা এ উদ্যোগ নিয়েছি। দু-তিন মাসের মধ্যে এ কার্যালয় শুরু হবে।’ বর্তমানে সারা দেশে ৬৭টি পাসপোর্ট কার্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে আগারগাঁও ছাড়া ঢাকার উত্তরা ও যাত্রাবাড়ীতে দুটি পাসপোর্ট কার্যালয় রয়েছে।
এদিকে অন্য একটি সরকারি সূত্র জানায়, পাসপোর্ট সেবা সহজ করতে পাসপোর্টের আবেদন ও ছবির ওপরে যে সত্যায়ন থাকে তা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া বর্তমানে পাঁচ বছর মেয়াদে পাসপোর্টের পাশাপাশি ১০ বছর মেয়াদে পাসপোর্ট করার প্রস্তাব আইন মন্ত্রণালয়ে মতামতের জন্য পাঠানো হয়েছে।
পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, এর আগে হাতে লেখা পাসপোর্টের আবেদনের সময় আবেদনকারীকে সশরীরে উপস্থিত হওয়া কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না। কিন্তু বর্তমানে যন্ত্রে পাঠযোগ্য (মেশিন রিডেবল) পাসপোর্টের জন্য আবেদনকারীকে সশরীরে উপস্থিত হতে হয়। এ কারণে এখন আর আবেদনের সত্যায়নের কোনো প্রয়োজন নেই। এই পদ্ধতি বাতিল হলে সাধারণ মানুষের বিড়ম্বনাও কমে যাবে। এ ছাড়া দালালের হয়রানিও কমবে।