ফেসবুকে পেলেন হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে

605
রোজিনা ইসলাম | আপডেট: ১৮:৪৫, জুলাই ২৫, ২০১৬

হারিয়ে যাওয়া রাব্বির এ ছবিটি ঘুরে বেড়াচ্ছে ফেসবুকেসাদা শার্ট পরা নয় বছরের একটি ছেলের ছবি। মায়াকাড়া বিষণ্ন চেহারা। ছবির ক্যাপশনই বলে দিচ্ছে ছেলেটির বিষণ্ন থাকার কারণ। ছবির ওপরে ‘শেয়ার করুন’ আবেদন জানিয়ে লেখা আছে, ‘এই বাচ্চাটি গঙ্গানগর থানায় আছে, আজ প্রায় ৪৬ দিন।’
অনেক দিন ধরেই ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার হচ্ছিল। ফেসবুকে সেই ছবি দেখে আনন্দে ভেসে গেলেন মো. মিন্টু। প্রায় তিন বছর ধরে হন্যে হয়ে ছেলেকে খুঁজছিলেন তিনি। ফেসবুকের এই ছবিটি যে তাঁর হারিয়ে যাওয়া সেই ছেলের! ছেলেকে পেতে আকুল মিন্টু। কিন্তু বাধা এখন সীমান্ত। আর তাই ভারতের গঙ্গানগর থেকে ছেলেকে ফিরিয়ে আনতে আবেদন করেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে করা আবেদনে মো. মিন্টু লিখেছেন, তাঁর স্থায়ী ঠিকানা পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার তেলিখালি গ্রামে। বাবার নাম হরমুজ আলী সিকদার। কাজের সূত্রে মিন্টু এখন থাকেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা উপজেলার দক্ষিণ রসুলপুরে। সেখান থেকেই ২০১৩ সালের ২৭ মে বেলা তিনটার দিকে তাঁর ছেলে হারিয়ে যায়। ওই সময় রাব্বির বয়স ছিল ছয় বছর। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও ছেলেকে না পেয়ে ২৯ মে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ফতুল্লা মডেল থানায়। পুলিশও রাব্বির কোনো সন্ধান দিতে পারেনি গত তিন বছরে।

ফেসবুকে ছেলের সন্ধান পেয়ে দেশে ফিরিয়ে আনতে এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দৌড়াদৌড়ি করছেন মিন্টু। আজ সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে উপস্থিত প্রথম আলোর এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ১৭ জুলাই তাঁর এক আত্মীয় ফেসবুকে ক্যাপশন দেওয়া ছবি দেখতে পেয়ে ছুটে আসেন তাঁর কাছে। তিনি নিশ্চিত হন, এটাই তারই হারানো বুকের মানিক। মিন্টু বলেন, ‘ছেলেকে পাওয়ার জন্য অনেক ছোটাছুটি করছি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি। আজ জানতে পেরেছি, মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পুলিশের বিশেষ শাখায় (এসবি) পাঠিয়েছে।’ তিনি জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালামাল পরিবহনকারী কাভার্ড ভ্যানের চালক হিসেবে কাজ করছেন। রাব্বি তাঁর দ্বিতীয় সন্তান।

আবেগাপ্লুত কণ্ঠে মিন্টু বলেন, ছেলেটাকে দেখার জন্য অস্থির হয়ে আছেন তিনি। স্ত্রী শিউলি সারাক্ষণ কান্নাকাটি করছেন ছেলেকে পাওয়ার জন্য। প্রতিদিন বাড়ি ফিরে গেলে জিজ্ঞাসা করেন, কবে ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনা যাবে।

মিন্টু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে করা আবেদনের সঙ্গে ফেসবুকে থাকা রাব্বির ছবি ও তাঁর কাছে থাকা পুরোনো ছবি যুক্ত করে দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, দুটি ছবি মিলিয়ে দেখে পুলিশও নিশ্চিত হয়েছে এটা রাব্বিই।
এদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেছেন, মন্ত্রণালয় ভারত থেকে রাব্বিকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিচ্ছে। এ জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তৈরিসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে।