বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার রায় কার্যকরের আট বছর পর মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ছয় খুনির মধ্যে চারজনের মধ্যে চারজনের আটটি পাসপোর্ট বাতিল করেছে সরকার। পলাতক এই খুনিদের মধ্যে খন্দকার আবদুর রশিদের নামে তিনটি, রাশেদ চৌধুরির একটি পাসপোর্ট ও মোসলেহ ‍উদ্দিনের নামে একটি পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়েছিল। যাদের পাসপোর্ট পাওয়া যায়নি , তারা হল এস এইচ বি নুর চৌধুরি ও আবদুল মাজেদ। 

বাংলাদেশের পাসপোর্ট আদেশ ১৯৭৩  এর ৭৩  এর ৭( ২) (গ) ধারা অনুযায়ী এই খুনিদের পাসপোর্ট বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র। 

বঙ্গবন্ধু হত্যা ৪৩ বছর পরে এই পাসপোর্ট বাতিল করল পাসপোর্ট বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর। তবে বিভিন্ন সূত্রে জান গেছে , পলাতক খুনিদের সবাই এখন বিভিন্ন দেশের পাসপোর্ট ব্যবহার করছেন।

স্বরাষ্ট্র ও পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ইতেমধ্যে ছয় দন্ডিতও তাদের স্বজনদের নামে থাকা স্থাবর অস্থাবর সমত্তি বাজেয়াপ্ত করার উদ্যাগ নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে খন্দকার আবদুর রশিদের মালিকানাধীন ১৬ দশমিক ৯৪২৫ একর এবং রাশেদ চৌধুরির ১  দশমিক ১৫ একর ভূমি বায়োজাপ্ত করে খাস খতিয়ানভুক্ত করা হয়েছে।