রোজিনা ইসলাম, ঢাকা১১ জুন ২০১৮, ২১:০৮ 
আপডেট: ১১ জুন ২০১৮, ২১:২৪

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) যাবেন না বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি ওই হাসপাতালকে অত্যন্ত নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন’ মন্তব্য করে তাঁকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা–নিরীক্ষা করানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

বিশেষায়িত ইউনাইটেড হাসপাতালে খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা করাতেন। যেখানে চিকিৎসকেরা তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতেন, সেখানেই তিনি চিকিৎসা করাতে চান।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, খালেদা জিয়াকে দুই দিন ধরে চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু তিনি বিএসএমএমইউতে যেতে রাজি হচ্ছেন না। এ অবস্থায় সরকার বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়েছে।খালেদা জিয়ার মতে, বিএসএমএমইউ পরিষ্কার–পরিচ্ছন্ন নয়। তাই সেখানে তিনি পরীক্ষা–নিরীক্ষা করাবেন না। কোনোভাবেই তাঁকে সেখানে নিতে পারবে না সরকার। তবে সরকারের পক্ষ থেকে কাল মঙ্গলবার তাঁকে হাসপাতালে নেওয়ার সব চেষ্টা করা হবে। এরপরও তিনি না গেলে সরকারের কিছু করার থাকবে না।

জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আজ রাতে প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার ব্যাপারে সবকিছু করা হচ্ছে। কিন্তু তাঁকে রাজি করানো যাচ্ছে না। তিনি বিএসএমএমইউকে “নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন” বলছেন। মঙ্গলবার আমরা তাঁর কাছে গাড়ি নিয়ে তৈরি হয়ে যাব। এরপর না গেলে আমাদের কিছু করার থাকবে না।’

ইউনাইটেডে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেওয়া হবে কি না, জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এটা তাঁর অযৌক্তিক দাবি। আমাদের জানামতে, চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউর চেয়ে ভালো হাসপাতাল আর নেই। আর কারা বিধি অনুযায়ী তাঁকে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

হাসপাতালে নিতে বিলম্ব হচ্ছে কি না, জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দুদিন ধরে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছি, কিন্তু তিনি রাজি হচ্ছেন না। এ ক্ষেত্রে তিনি নিজেই দেরি করছেন। সরকার খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে শতভাগ আন্তরিক।’

বিএনপিরও দাবি, বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার যথাযথ চিকিৎসা হবে না। দলের চেয়ারপারসনকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

গতকাল রোববার ও সোমবার দিনভর গুঞ্জন ছিল, খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

কারাবন্দী খালেদা জিয়া ৫ জুন কারাগারে হঠাৎ পড়ে যান। তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের ধারণা, খালেদা জিয়ার ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছিল।

এ বিষয়ে গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান প্রথম আলোকে বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসকেরা তাঁদের জানিয়েছেন, তিনি মাথা ঘুরে পড়ে যান। তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কখন খালেদা জিয়াকে পরীক্ষার জন্য নেওয়া হবে, তা আইজি প্রিজন ঠিক করবেন।

এর আগে সচিবালয়ে গত রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে সরকার ‘কনসার্ন’। তাঁর ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছে কি না, তা জানতে তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হবে।

এর আগে রোববার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, পরীক্ষার জন্য তাঁকে বিএসএমএমইউতে নেওয়া হবে। এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএসএমএমইউতেও বড় বড় চিকিৎসক, গবেষক রয়েছেন। আবার তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসকেরাও রয়েছেন। সুতরাং সেখানেই চিকিৎসা হবে। তবে খালেদা জিয়ার এর বেশি কিছু প্রয়োজন হলে সরকার তা-ও দেখবে।

এর আগে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে সরকার ‘কনসার্ন’। তাঁর ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছে কি না, তা জানতে তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে বিএনপির এক নেতা বলেছেন, ‘পিজিতে (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল) ওনার যে চিকিৎসা, সেই চিকিৎসার ব্যাপারে উনি (খালেদা জিয়া) সন্তুষ্ট নন। সেখানে তাঁর যথাযথ চিকিৎসা হবে না। তাই সেখানে তিনি চিকিৎসা করাতে চান না।’