রোজিনা ইসলাম | অক্টোবর ১৬, ২০১৫

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল । ফাইল ছবি
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল । ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে দেশে ফিরিয়ে আনতে প্রস্তুতি নিচ্ছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। নির্দেশনা পাওয়ার পর যত দ্রুত সম্ভব তাঁকে ফিরিয়ে আনতে আনুষঙ্গিক কাজগুলো সেরে রাখছে মন্ত্রণালয়। এ জন্য পুলিশকে নির্দেশনা দিয়ে রেখেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
তবে মন্ত্রী বলেছেন, আইনগত বিষয় ও প্রক্রিয়া শেষ করে তাঁকে আনতে আরও কিছুটা সময় লাগবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে তাঁকে ফিরিয়ে দিতে ভারত সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন সময়ে চিঠি আদান-প্রদান হয়েছে। তবে আজই ভারতের আদালতে তাঁকে ফিরিয়ে দিতে আদেশ দিয়েছেন। কিন্তু এখনো ভারত থেকে বাংলাদেশের কাছে এ ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি। মন্ত্রী বলেন, পুরো প্রক্রিয়া শেষ করে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনতে তাই কিছুটা সময় লাগবে।
আসাদুজ্জামান বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাবে। সেখান থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ‘নোট ভারবাল’ পাঠানো হবে। এর পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নেবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মোজাম্মেল হক খান বলেন, পুরো প্রক্রিয়া শেষ হওয়া কিছুটা সময়ের ব্যাপার। সরকারের চেষ্টা আছে যত দ্রুত সম্ভব নূর হোসেনকে ফিরিয়ে আনা। তবে বিষয়টি ভারতের ওপর নির্ভর করছে। তারা তাদের প্রক্রিয়া শেষ করে বাংলাদেশকে জানালে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
আজ শুক্রবার সকালে নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার আসামি নূর হোসেনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন ভারতের আদালত। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাসাতের মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
এর আগে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে দায়ের করা সব মামলা প্রত্যাহার করে তাঁকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দেয়।
ভারতের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা প্রথম আলোকে বলেছেন, নূর হোসেনকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হতে পারে।
প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাতজনকে ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল অপহরণ করে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় করা দুটি মামলার প্রধান আসামি কাউন্সিলর নূর হোসেন ঘটনার পরপরই ভারতে পালিয়ে যান। এরপর কলকাতা শহরের অদূরে বাগুইহাটি নামের একটি আবাসনে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। অবৈধভাবে ভারতে অবস্থানের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়।
বারাসাত পুলিশ জানায়, গত ১৮ আগস্ট এ মামলায় নূর হোসেনসহ তাঁর সঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া আরও দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করেন। এরপর বাংলাদেশ সরকার নূর হোসেনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে অনুরোধ করে।

আরও পড়ুন:

নূর হোসেনকে ফেরত পাঠানোর আদেশ